Feeds:
Posts
Comments

Archive for June 6th, 2011

 

Advertisements

Read Full Post »

কম্পিউটার ল্যাব, সাইবার ক্যাফে বা অফিসের কম্পিউটার ব্যবহারকারীরা কে কি করছে তা মনিটর এবং নিয়ন্ত্রণ করা দারুন এক সফটওয়্যার হচ্ছে ক্লাসরুম স্পাই। উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে চালিত কম্পিউটারে এই সফটওয়্যারটি নেটওয়ার্ক এ্যাডমিনিস্ট্রেটরদের দারুন কাজে দেবে।
লোকাল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে সংযুক্ত আছে এমন অফিসে কর্মকর্তারা, সাইবার ক্যাফের ব্যবহারকারীরা, কম্পিউটার ল্যাবের ছাত্ররা তাদের কম্পিাউটারে বসে কে কি করছে তা মনিটর করা বা রিমোটলি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে ক্লাসরুম স্পাই সফটওয়্যার দ্বারা। মাইক্রোসফটের রিমোট ডেক্সটপ দ্বারা লোকাল নেটওয়ার্কের থাকা রিমোট কম্পিউটার নিয়ন্ত্রণ করা যায় কিন্তু ক্লাসরুম স্পাই এর মত এতো ভালভাবে মনিটর করা যায় না। মাত্র ১১ মেগাবাইটের এই সফটওয়্যারটি www.eduiq.com বা www.classroomspy.com সাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

সফটওয়্যার ইনস্টল করা: সফটওয়্যারটির দুটি অংশের একটি হচ্ছে Console আর একটি হচ্ছে Agent| এই Console মুডটা হচ্ছে নেটওয়ার্ক এ্যাডমিনিস্ট্রেটরের জন্য আর Agent মুডটা হচ্ছে যাদের মনিটর করা সেই কম্পিউটারের জন্য।
সফটওয়্যারটি ইনস্টল করার সময় Click here to install ″Classroom Spy Professional Console″ এবং Click here to install ″Classroom Spy Agent″ নামের দুটি বাটন আসবে। এখন Stealth Agent Install চেকবক্স চেক করে Click here to install ″Classroom Spy Agent″ বাটনে ক্লিক করে ইনস্টল করুন এবং পাসওয়ার্ড সেট করুন যা পরবর্তীতে এই কম্পিউটারটিকে রিমোট করার সময় প্রয়োজন হবে। শেষে Start Agent বাটনে ক্লিক করে সার্ভিস চালু করুন এবং ইনস্টল সমাপ্ত করুন।
নেটওয়ার্ক এ্যাডমিনিস্ট্রেটরের কম্পিউটারে Classroom Spy Professional Console মুড ইনস্টল করে চালু করুন তাহলে প্রথমবার পাসওয়ার্ড সেট করতে হবে যা পরবর্তীতে Classroom Spy Professional Console চালু করতে লাগবে।
রিমোট কম্পিউটার যোগ করা: প্রথমে Classroom Spy Professional চালু করে বাম পাশের প্যানেল থেকে Add Computer বাটনে ক্লিক করুন। এবার Remote computer (host or IP) এ রিমোট কম্পিউটারের নাম বা আইপি এড্রেস লিখুন, Nikename এ কম্পিউটারটির নাম দিন (বোঝার সুবিধার্থে) এবং Agent’s password এ উক্ত রিমোট কম্পিউটারের সেট করা পাসওয়ার্ড দিন। Advanced Options ট্যাবে গিয়ে Color Level কালার 16M নির্বাচন করে Basic Options ট্যাবে এসে Remote Assistant Configure / Installation বাটনে ক্লিক করুন এবং উক্ত কম্পিউটারের এ্যাডমিনিস্ট্রেটর ইউজার নেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে Connect বাটনে করে Classroom Spy Configuration এ পুনরায় রিমোট কম্পিউটারের Agent’s password দিয়ে Ok করুন এবং সবশেষে Add Computer ডায়ালগ বক্সে Ok করুন। তাহলে Classroom Spy Professional এর Remote Screens ট্যাবে কম্পিউটারটির বর্তমান অবস্থান দেখা যাবে। এভাবে আরো রিমোট কম্পিউটার যোগ করা যাবে।
রিমোট কম্পিউটার মনিটর করা: রিমোট কম্পিউটার মনিটর করতে চাইলে Remote Screens ট্যাবে প্রদর্শিত থাকা কম্পিউটারের উপরে মাউসের ডান বাটন ক্লিক করে Zoom Remote Screen এ ক্লিক করলে বড় পর্দায় উক্ত কম্পিউটারের ডেক্সটপ দেখা যাবে। উক্ত কম্পিউটারটি কোন কাজ করতে চাইলে Enable Control চেক বক্স চেক করলে মাউস বা কীবোর্ড দ্বারা উক্ত কম্পিউটারে কাজ করা যাবে। আর প্রদর্শিত থাকা কম্পিউটারের উপরে মাউসের ডান বাটন ক্লিক করে Remote Control এ ক্লিক করলে Enable Control সক্রিয় হয়ে বড় আকারে দেখা যাবে। উক্ত ডেক্সটপটি পূর্ণ পর্দায় দেখতে Full Screen বাটনে ক্লিক করতে হবে।
রিমোট কম্পিউটারে ম্যাসেজ পাঠানো: রিমোট কম্পিউটারের সবগুলোকে বা নির্দিষ্ট কোন কম্পিউটারে ম্যাসেজ পাঠাতে Classroom Spy Professional এর Show Massage/Block Computer ট্যাবে গিয়ে ডানপাশের প্যানেল থেকে কম্পিউটারগুলো নির্বাচন করে Mesage text এ ম্যাসেজ লিখে নিচের Show Message / Block Computer বাটনে ক্লিক করুন তাহলে নির্বাচিত কম্পিউটারগুলোতে ম্যাসেজ প্রদর্শিত হবে। ম্যাসেজ উইন্ডো রিমোট কম্পিউটারের ব্যবহারকারীরা বন্ধ করতে পারবে আর নেটওয়ার্ক এ্যাডমিনিস্ট্রেটর সকল কম্পিউটারে পাঠানো ম্যাসেজ বন্ধ করতে Hide Message / Block Computer বাটনে ক্লিক করলেই হবে।
নিজের ডেক্সটপ শেয়ার করা: নেটওয়ার্ক এ্যাডমিনিস্ট্রেটরের নিজের ডেক্সটপটি শেয়ার দিতে চাইলে Classroom Spy Professional এর Share Desktop ট্যাবে গিয়ে ডানপাশের প্যানেল থেকে যে যে রিমোট কম্পিউটারে ডেক্সটপ শেয়ার দিতে চান সেগুলো নির্বাচন করে Start Sharing Desktop বাটনে ক্লিক করুন। রিমোট কম্পিউটারের ডেক্সটপকে নিস্ক্রিয় করে শুধুমাত্র আপনার ডেক্সটপকে দেখাতে বাধ্য করতে চাইলে নিচের Full Screen এবং Lock Computers চেক করুন শেয়ার দিতে পারেন। এছাড়াও Color Level থেকে কালারের মান পরিবর্তন করতে পারবেন। শেয়ার বন্ধ করতে Stop Sharing Desktop বাটনে ক্লিক করলেই হবে।
ডেক্সটপ রেকর্ড করা: রিমোট কম্পিউটারের ডেক্সটপ রেকর্ড করতে Desktop Recorder ট্যাবে গিয়ে Record বাটনে ক্লিক করুন এবং যে যে রিমোট কম্পিউটারের ডেক্সটপ রেকর্ড করতে চান সেগুলো নির্বাচন করে Ok করুন। তাহলে ডেক্সটপ মনিটর শুরু করলে উক্ত রিমোট কম্পিউটারে সেভ হবে। রেকর্ড করা ভিডিও দেখতে চাইলে Open Network Share বাটনে ক্লিক করলে সেভ হওয়া ফোল্ডার খুলবে।
কম্পিউটার বন্ধ করা রির্স্টাট করা: রিমোট কম্পিউটার বন্ধ, রিস্টার্ট, হাইবারনেট, স্ট্যান্ডবাই, লগঅফ, স্ক্রিনসেভার চালু, স্ক্রিনসেভার বন্ধ বা লক করতে চাইলে Tools ট্যাবে যান এবং নির্দিষ্ট বাটনে ক্লিক করে রিমোট কম্পিউটারগুলো নির্বাচন করে Ok করলেই হবে। এখান থেকে রিমোট কম্পিউটারের কমান্ড প্রম্পট, রান বা ওয়েবসাইট চালু করা যাবে।
প্রোসেস থাকা প্রোগ্রাম বন্ধ করা: রিমোট কম্পিউটারগুলো থেকে প্রোসেস চলতে থাকা নির্দিষ্ট কোন প্রোগ্রাম বন্ধ করতে Processes ট্যাবে গিয়ে যে প্রোসেসটি বন্ধ করতে চান সেটি নির্বাচন করে Kill all with the same name বাটনে ক্লিক করে রিমোট কম্পিউটার নির্বাচন করে Ok করলেই হবে।
পোর্ট বন্ধ করা: রিমোট কম্পিউটারের কোন পোর্ট বন্ধ করতে চাইলে Internet Control ট্যাবে গিয়ে বন্ধ করতে পারেন।
এছাড়াও Classroom Spy Professional Console এর Add Group of LAN Computers বাটনে ক্লিক করে নেটওয়ার্কে থাকা সকল (নির্বাচন করে) কম্পিউটারগুলোতে Classroom Spy Professional Agent ইনস্টল করা যাবে।

Read Full Post »

কম্পিউটারে অন্যের অনুপ্রবেশ ঠেকাতে আমরা উইন্ডোজে পাসওয়ার্ড দিয়ে থাকি। উইন্ডোজের এই ইউজার পাসওয়ার্ড সহজেই হ্যাক করা যায়। আবার সিস্টেম (বায়োস) পাসওয়ার্ড দিলেও ভাঙ্গা যায় সহজে। কিন্তু উইন্ডোজে যদি ইউজার পাসওয়ার্ড ছাড়াও আরেকটি পাসওয়ার্ড দ্বারা সুরক্ষিত করা যায় তাহলে কেমন হয়! উইন্ডোজর চালু হবার পরে লগইন স্ক্রিন আসার আগেই একটি পাসওয়ার্ড সেট করা যায়। এটাকে স্টার্টাআপ পাসওয়ার্ড বলে।
স্টার্টাআপ পাসওয়ার্ড সেট করতে স্টার্ট>রানে (Windows+R চেপে) গিয়ে syskey লিখে এন্টার করুন, তাহলে Security the Windows Account Database ডায়ালগ বক্স আসবে। এখানে Encryption Enabled চেক রেখে Update বাটনে ক্লিক করুন তাহলে Startup Key ডায়ালগ বক্স আসবে। এবার Password Startup চেক করে স্টার্টআপ পাসওয়ার্ড দিয়ে Ok করুন। তাহলে পাসওয়ার্ড সেট হবে এবং নিশ্চিতকরন বার্তা আসবে।
এখন থেকে কম্পিউটার চালু করলে লগইন স্ক্রিন আসার আগেই স্টার্টআপ পাসওয়ার্ড ডায়ালগ বক্স আসবে। এখানে পাসওয়ার্ড না দিলে লগইন স্ক্রিন আসবে না। আর বিকল্প পথে উইন্ডোজে প্রবেশ করা যাবে না।
পাসওয়ার্ড মুছে ফেলতে হলে Security the Windows Account Database ডায়ালগ বক্স থেকে Update বাটনে ক্লিক করে কেনা পাসওয়ার্ড না লিখে Ok করুন। এবার পূর্বের পাসওয়ার্ড লিখে Ok করলেই হবে।

Read Full Post »

গুগল ট্রান্সলিটারে বাংলা ভাষা না থাকলেও গুগল অভিধানে এবং গুগল ট্রান্সলিটারেশন বাংলা ভাষা ব্যবহার রয়েছে। গুগল ট্রান্সলিটারেশন দ্বারা সহজেই জিমেইলে সরাসরি এবং একটি প্লাগইন দ্বারা ফায়ারফক্সে ফনেটিকে (যেমন Ami Bangladeshke Valobasi লিখলে আসবে ‘আমি বাংলাদেশকে ভালবাসি’) বাংলা লিখা যায়।
গুগল ট্রান্সলিটারেশন এ্যাড-অন্সটি https://addons.mozilla.org/en-US/firefox/addon/8731 থেকে ইনস্টল করে ফায়ারফক্স রিস্টার্ট করুন। এবার টুলস মেনু থেকে Add-Ons এ ক্লিক করে Google Transliteration এর অপশন্সে ক্লিক করে Enable Transliteration for text boxes too চেক করুন।
এখন ফায়ারফক্সের কোন টেক্সট বক্সে বা টেক্সট এরিয়াতে কিছু লিখতে গেলে ডানে ভাষার তালিকা আসবে। সেখানে ড্রপডাউন থেকে Bengali নির্বাচন করে বামপাশের চেক বক্স চেক করুন। এরপর থেকে টেক্সবক্সে ইংরেজীতে কিছু লিখে (ফনেটিক) স্পেস দিলে তা বাংলাতে রূপান্তর হবে।
জিমেইলে ব্রাউজারের সাহায্য ছাড়ায় ফনেটিকে বাংলা লিখা যায়। এজন্য জিমেইলে লগইন করে Settings এ ক্লিক করুন। এবার General ট্যাবে থাকা অবস্থায় Enable Transliteration – type using phonetic English চেক বক্স চেক করুন এবং Default transliteration language এর ড্রপ-ডাউনে বাংলা নির্বাচন করুন (সাধারণত বাংলা নির্বাচিত থাকে)। যদি অপশনটি না থাকে তাহলে Show all language options এ ক্লিক করলে Default transliteration language চলে আসবে। ব্যস এবার সেভ করুন।
এখন মেইল কম্পোজ করতে গেলে (অবশ্যয় Rich formatting হতে হবে) ফরম্যাটিং বারের বামে ‘অ’ অক্ষরটি দেখা যাবে। এই ‘অ’ অক্ষরটিতে ক্লিক করলে Transliteration সক্রিয় হবে। এখন ম্যাসেজ বডিতে (ফনেটিকে) কিছু লিখে স্পেস দিলে তা বাংলাতে রূপান্তর হবে। এই Transliteration বন্ধ করতে ‘অ’ অক্ষরটি উপরে ক্লিক করলেই হবে।
কম্পিউটারে যদি ইউনিকোডের কোন বাংলা ফন্ট ইনস্টল করা না থাকে তাহলে যেমন বাংলা সাইট দেখা যায় না তেমনই বাংলাতে লিখাও যাবে না। তবে http://unicodehelpcenter.blogspot.com সাইট থেকে বাংলা ফন্ট নামানোর পাশাপাশি কম্পিউটারে বাংলা কনফিগার করার পদ্ধতি এবং এই সাইটেই সফটওয়্যার ছাড়ায় বিজয়/ফনেটিক/ইউনিজয় কীবোর্ডের মাধ্যমে বাংলা লিখতে পারবেন।

Read Full Post »

উইন্ডোজ/ এক্সপিতে সিসটেমরিস্টোর ১টি অপশন আছে যা মাঝে মাঝে খুবই কাজে দেয়। এটি তারিখ অনুযায়ি পিসির বর্তমানঅবস্থার ১টি কনফিগারেশন ফাইল রেখে দেয়, যা পরবর্তিতে যদি আপনার পিসি কোন সমস্যায়পড়ে তাহলে আপনি এই সিসটেম রিস্টোর থেকে আপনার মনে পড়া শেষ ভাল অবস্থার দিনে পিসিযে অবস্থায় ছিল সেখানে নিয়ে যেতে পারবেন।

এই পদ্ধতির জন্য পিসি তারপ্রতিটি ড্রাইভের ই সিসটেম রিস্টোর পয়েন্ট তৈরি করে ফলে হার্ড ডিস্কের ১টা ৫-১০% অংশদখল হয়ে থাকে। বাই ডিফল্ট সিসটেম রিস্টোর অপশন চালু থাকে কিন্তু আপনি চাইলে এররিস্টোরের জন্য যায়গা বরাদ্ধের পরিমান কম বেশি করতে পারেন।

 

মনে করুন আপনি সি ড্রাইভেরজন্য ৫-৭% যায়গা বরাদ্ধ করে রেখেছেন। আপনি যখন জানেন যে গত ১০/১৫ দিনে পিসি র কোনঝামেলা হয়নি তাহলে আপনার পিসির সি ড্রাইভের রিস্টোর অপশন বন্ধ করে দিয়ে পিসিরিস্টার্ট করুন এবং রিস্টার্টের পর আবার তাতে নতুন করে রিস্টোর অপশন সেট করুন এতেপিসি গত ১৫-৩০ দিনের যে সব রিস্টোর পয়েন্ট সেভ করে রেখে যায়গা দখল করেছিল তা খালিহয়ে নতুন ভাবে রিস্টোর করা শুরু করবে অর্থাৎ আপনার সি তে কিছু যায়গা তৈরি হবে।অন্য ড্রাইভে ও এই কাজ করতে পারেন। এমনকি চাইলে আপনি পারমানেন্টলি রিস্টোর অপশনডিজেবল করে দিতে পারেন [তবে এটি রাখা অন্তত সি তে] এতে হার্ড ডিস্কে বেশ কিছু ফ্রিস্পেস পাবেন।

Read Full Post »

আপনি যদি এক্সপি এবং ভিসতা দুটিকেই চালাতে চান, তবে আপনাকে প্রথমে এক্সপি ইন্সটল করতে হবে এবং এরপর ভিসতা ইন্সটল করতে হবে। উইন্ডোজ এক্সপিকে যদি উইন্ডোজ ভিসতার পরে ইন্সটল করা হয় তবে উইন্ডোজ এক্সপির বুট লোডার উইন্ডোজ ভিসতার বুট লোডারকে প্রতিস্থাপিত করে।
এ কারণে আপনি যদি উইন্ডোজ ভিসতার পরে উইন্ডোজ এক্সপি ইন্সটল করে থাকেন তবে আপনি ভিসতাতে বুট করতে পারবেন না। কিন্তু নিচের কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করেই আপনি আপনার উইন্ডোজ ভিসতার বুট লোডারকে পুনরুদ্ধার করতে পারবেন।

ধাপ 1: VistaBootPRO ডাউনলোড করুন।এটা একটা চমৎকার Software যা উইন্ডোজ ভিসতার বুট লোডারকে মাত্র কয়েক সেকেন্ডে পুনরায় ইন্সটল করতে পারে।

ধাপ 2: Software টি ইন্সটল করে রান করুন।

ধাপ 3: এবার নিচের ছবির মত Bootloader বাটনে ক্লিক করুন
ধাপ 4: অপশন থেকে “Reinstall the Vista Bootloader” সিলেক্ট করুন এবং “Configure It” বাটনে ক্লিক করুন।
ব্যস হয়ে গেল। এটা আপনার বুটলোডারকে ইন্সটল করবে। এছাড়া আপনি এর মাধ্যমে সম্পাদনা করতে পারবেন বুটলোডারের টাইমআউট, ডিফল্ড বুট এন্টারি, বুট এন্টারি লেভেল প্রভৃতি।

Read Full Post »

অনেক সময় বিভিন্ন প্রয়োজনে আমাদের কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার নিরীক্ষার প্রয়োজন পড়ে। Belarc Advisor নামক নিরীক্ষার সফওয়্যারটির মাধ্যমে এ কাজটি খুব সহজেই করা যায়। এজন্য http://www.belarc.com/free_download.html ঠিকানার ওয়েবসাইট থেকে মাত্র ১.৯ মেগাবাইটের সফটওয়্যারটি নামিয়ে নিন। এবার ইন্সটল করে রান করুন। দেখবেন আপনার কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার এর সকল তথ্য পেয়ে গেছেন।
http://mahbub4s.synstasite.com

Read Full Post »

Older Posts »